অনলাইন সোশ্যাল মিডিয়াগুলোর মধ্যে লিংকডইন মূলত চাকরিপ্রার্থীদের জন্য প্রফেশনাল একটি প্লাটফর্ম। ৮০ শতাংশ লিংকডইন ব্যবহারকারীর মতে, চাকরি খোঁজার জন্য ও একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করার জন্য লিংকডইনের থেকে ভালো প্লাটফর্ম হতেই পারে না। অন্যদিকে ৫৬২ মিলিয়ন লিংকডইন ব্যবহারকারীদের মধ্যে ৮২ শতাংশ ব্যবহারকারীর মতে, লিংকডইন থেকে উপযুক্ত চাকরিপ্রার্থী খুজে পাওয়া সম্ভব।

Source: falcon5m.com.br

সুতরাং বুঝতেই পারছেন যে, একটি প্রফেশনাল ও মার্কেটের ট্রেন্ডের সাথে চলমান লিংকডইন প্রোফাইল, চাকরি খোঁজার জন্য অথবা চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে নেটওয়ার্ক তৈরি করার জন্য উপযুক্ত ও খুবই প্রয়োজনীয় একটি মাধ্যম। চলুন তাহলে জেনে আসি, এমন কিছু টিপস সম্পর্কে যেগুলো দ্বারা আপনার লিংকডইন প্রোফাইলকে প্রফেশনালি ফরম্যাটিং করা সম্ভব হবে।

Source: transparency.kununu.com

কি ইনফরমেশন আইটেমাইজ করুন

পোস্ট লেখার জন্য কিংবা প্রোফাইল আপডেট করার জন্য, একটি দীর্ঘ ও জটিল প্যারাগ্রাফ ব্যবহার করার চেয়ে পয়েন্ট দিয়ে সম্পূর্ণ লেখাটি আইটেমাইজ করে দিন। কারণ, একটি আইটেমাইজ করা পয়েন্টেড প্যারাগ্রাফ পড়া স্বভাবতই একটি জটিল ও দীর্ঘ প্যারাগ্রাফ পড়ার থেকে সহজ। চাকরিদাতারা কোনোভাবেই জটিল অথবা দীর্ঘ প্যারাগ্রাফ পড়ে সময় নষ্ট করবেন না। সেক্ষেত্রে তারা কোনো কিছু না ভেবেই আপনার প্রোফাইলটি স্কিপ করতে বাধ্য হবেন।

Source: steverandall.com

একটি লিংকডইন ডকুমেন্ট পয়েন্ট দ্বারা লেখার জন্য দুটো নিয়ম ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মগুলো হচ্ছে,

  • যেকোনো একটি ওয়ার্ডপ্রসেসর সফটওয়্যারে লিখিত ডকুমেন্টকে পয়েন্ট দ্বারা কাস্টোমাইজ করে তারপর সেটাকে লিংকডইনে আপডেট করা যাবে।
  • আপনি যদি উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে পোস্ট বা ডকুমেন্ট লেখার জায়গায় অল্টারনেটিভ কি (Alt Key) চেপে ধরে ০১৪৯ চাপুন এবং ছেড়ে দিন। এতে করে একটি পয়েন্টের বুলেট দেখা যাবে। আবার, আপনি যদি ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে একই জায়গায় অল্টারনেটিভ কি (Alt Key) চেপে ধরে ৮ চাপুন এবং ছেড়ে দিন।
Source: adage.com

যতটুকু দরকার ঠিক ততটুকুই ব্যবহার করুন

যেকোনো ডকুমেন্ট লেখার জন্য যতটুকু বলা দরকার ঠিক ততটুকুই ব্যবহার করা উচিৎ। কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, দীর্ঘ এবং অনেকগুলো প্যারাগ্রাফের সমন্বয়ে লিখিত ডকুমেন্ট বা পোস্ট পাঠক পড়তে চান না। সার্চ ওয়াইল্ডারনেসের প্রতিষ্ঠাতা পল শাপিরোর ৩০০০ লিংকডইন পোস্ট অ্যানালাইজ করে দেখেন যে, ১৯০০ থেকে ২০০০ শব্দের পোস্টগুলো সবচেয়ে বেশি লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করা হয়েছে।

Source: sahilpopli.com

তিনি আরো দেখেন যে, লিংকডইনে লেখা পোস্টগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ও আকারে ছোটো প্যারাগ্রাফের পোস্টগুলো সবচেয়ে বেশি মানুষ পড়েছে। সুতরাং শুধুমাত্র পোস্টের শব্দের সংখ্যাই মুখ্য ব্যাপার নয়, পোস্টের আকারের দিকেও মনোযোগ দেয়া উচিত।

Source: houseofbots.com

পোস্ট লেখা ও কমেন্ট করার সময় চিহ্নের যথাযথ ব্যবহার করুন

ধরুণ, একজন চাকরিদাতা চাকরির সাথে সম্পর্কিত একটি পোস্ট দিলেন। সেক্ষেত্রে কমেন্ট বক্সে আপনি ‘আগ্রহী’ লিখে কমেন্ট করলেন। কিন্তু ‘আগ্রহী’ শব্দটা লেখার পাশে এমন একটি চিহ্ন কিংবা ইমোজি ব্যবহার করলেন যেটার অর্থ আপনার আগ্রহের সাথে সম্পর্কিত নয়। হয়তো এমন কোনো অযৌক্তিক চিহ্নের ব্যবহারে চাকরিদাতা অসন্তুষ্টও হতে পারেন। তাই, সঠিক পোস্টের ক্ষেত্রে উপযুক্ত চিহ্ন ও ইমোজির ব্যবহার করা উচিত।

Source: lynda.com

একইভাবে আপনার লেখা কোনো ডকুমেন্ট, পোস্ট কিংবা প্রোফাইলের কোনো আপডেটে, উদ্ভট ও অবাঞ্চিত কোনো চিহ্ন বা ইমোজি থাকলে সেটাকে পরিবর্তন করুন। কারণ, এর ফলে চাকরিদাতা কিংবা নেটওয়ার্ক তৈরি করার ক্ষেত্রে বেশ ভালো রকমের বেগ পেতে হতে পারে।

Source: journalofaccountancy.com

উপযুক্ত ও অধিক গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো সবার উপরে রাখার চেষ্টা করুন

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, লিংকডইন প্রোফাইলের ড্যাশবোর্ডে নিচে অবস্থিত ‘এক্সপেরিয়েন্স’ সেকশনে অপ্রয়োজনীয় ও কম গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো সবার উপরে থাকে। ‘অভিজ্ঞতা’ এমন একটি দক্ষতা, যেটা আপনার চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেক বেশি কাজে আসবে। তাই, ‘এক্সপেরিয়েন্স’ সেকশনকে যতটা সম্ভব গুছিয়ে লেখার চেষ্টা করুন।

Source: sproutsocial.com

এই সেকশনের টাইটেল, কোম্পানির নাম, ডেসক্রিপশন এবং সম্পৃক্ত লিংক অথবা ভিডিও খুবই মনোযোগের সাথে আপডেট করবেন। কারণ, এগুলো দ্বারা সহজেই আপনার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে। একজন চাকরিদাতা কিন্তু মানবসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তাদের উপর এই দায়িত্ব দিয়ে থাকেন। আর আপনাকে মনে রাখতে হবে যে, মানবসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তারা মার্কেটিংয়েও অনেক দক্ষ। আর তারা আপনার অভিজ্ঞতার ঝুলিতে কত বছর দেখতে চাইবে না, দেখতে চাইবে আপনার কাজের তালিকা।

Source: eweek.com

যেকোনো পোস্টের সাথে মিডিয়া ও কল অন অ্যাকশন বাটন যুক্ত করুন

লিংকডইনে আপনার অ্যাকটিভিটি যত বেশি হবে, তত বেশি আপনার নেটওয়ার্ক বড় হতে থাকবে। লিংকডইনে অ্যাক্টিভ থাকার জন্য সবচেয়ে ভালো একটি মাধ্যমে হচ্ছে ‘পোস্ট করা‘। উপযুক্ত পোস্ট করার মাধ্যমে আপনি শুধু অ্যাকটিভিটিই বাড়াচ্ছেন না, বরং আপনি আপনার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার মার্কেটিং করতে পারছেন। কিন্তু যা ইচ্ছা কিংবা যেভাবে ইচ্ছা পোস্ট করলেই যে আপনার মার্কেটিং হবে সেটা মোটেও ভাববেন না।

Source: lynda.com

প্রতিটি লিংকডইন পোস্টের সাথে ইমেজ অথবা ভিডিও যুক্ত করার চেষ্টা করুন। প্রতিটি লিংকডইন পোস্টের সাথে কল অন অ্যাকশন বাটন যুক্ত করুন। ইমেজ ও ভিডিও আপনার পোস্টের প্রতি মানুষের আকর্ষণ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে এবং যারা আপনার পোস্টটি পড়ে আগ্রহী হবে বা কোনো প্রশ্ন করতে চাইবে, তারা সরাসরি আপনার পোস্টের কল অন অ্যাকশন বাটনে ক্লিক করেই আপনাকে ফোন করতে পারবে।

Source: inc.com

কিছু গুরুত্বপূর্ণ লিংকডইন কী-ওয়ার্ড জেনে রাখুন

গুগল, ইয়াহু কিংবা বিং এর মতো ফেসবুক, গুগল প্লাস বা লিংকডইন সার্চ অপশনেও বেশ কয়েক ধরণের ইন্টারন্যাল কীওয়ার্ড রয়েছে, যেগুলো দ্বারা সহজেই আপনার প্রয়োজনীয় ফলাফল পাওয়া সম্ভব। সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে লিংকডইন সার্চ কীওয়ার্ড সম্পর্কে জানতে হবে। নিচে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সার্চ কীওয়ার্ড দেয়া হলো,

  • প্রফেশনাল হেডলাইনের আকার সর্বোচ্চ ১২০ বর্ণের হওয়া উচিত।
  • যেকোনো ডকুমেন্টের টাইটেল সর্বোচ্চ ১০০ অক্ষরের হওয়া উচিত।
  • প্রোফাইলের ডেসক্রিপশন ৫০০ বর্ণের মধ্যে হওয়া উচিত।
  • ‘ইন্টারেস্ট’ সেকশনের বর্ণনা ১০০০ বর্ণের হওয়া উচিত।

Featured Image: postbulletin.com

Leave a comment